রাতে ঠিকমত ঘুম হয় না ? সমস্যা মুক্তি ঘটাবে হোমিওপ্যাথি

ঘুমের সমস্যা খুব সাধারণ ঘটনা, যা যেকোনো ব্যক্তির জীবনের যেকোনো সময় ঘটতে পারে। ঘুমের সমস্যার চিকিৎসার জন্য হোমওপ্যাথিকে খুব প্রভাবিত উপায় বলে মনে করা হয়।

এখানে দশটি হোমিওপ্যাথি ঔষধ সম্পর্কে লেখা হল, যা ঘুমের সমস্যার সমাধান করতে পারে।

কোফি- এটি সব থেকে ভালো হোমিওপ্যাথি ঔষধ ঘুমের সমস্যা সমাধান করার জন্য। যে সব ব্যক্তি জাগ্রত অবস্থায় থাকে এবং চোখ বন্ধ করতে পারে না, তারা এটি ব্যবহার করতে পারে। এটি মানসিক উত্তেজনার কারণে শারীরিক উৎসাহের জন্য ঘটে। এই ধরণের ঘুমের সমস্যা মাদক দ্রব্য বা রাতে জেগে থাকার ফলেও ঘটে।

সেনসিও- এই হোমিওপ্যাথি ঔষধের ব্যবহার তখন করা হয় যখন কারোর গর্ভাবস্থায় ঘুমের সমস্যা দেখা যায়। এই ধরণের ঘটনায় গর্ভাশয়ে জ্বলন অনুভব হয়।

মিউরিয়াটিক অ্যাসিড- যখন রোগীর ঘুম পায় কিন্তু ঘুমতে পারেনা তখন এই ঔষধটি ব্যবহার করা হয়। এক্ষেত্রে রোগী ঘুমোনোর চেষ্টা করে এবং ক্লান্ত হয়ে পড়ে। এটা স্বপ্নের জন্যও হতে পারে।
কস্টিকাম- শুস্ক তাপমাত্রার জন্য যখন রাতে ঘুমোতে পারে না তখন কস্টিকাম ব্যবহার করা হয়। এক্ষেত্রে প্রভাবিত ব্যক্তি সঠিক এবং আরামদায়ক ভাবে ঘুমোনোর চেষ্টা করেন।

ফেরাম মেট- এই হোমওপ্যাথি ঔষধটি সেই সব মানুষের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয় যারা বিছানা বা শোয়ার দিক পরিবর্তনের জন্য ঘুমোতে পারে না।

ইগনাশিয়া – এই হোমওপ্যাথি ঔষধটি সেই সব মানুষের জন্য ব্যবহার করা হয় যাদের ঘুম খুব একটা গভীর নয়। ঘুম হালকা হবার কারণে রোগী ঘুমন্ত অবস্থায় তার চারপাশে সব কিছু শুনতে পায়। এটা স্বপ্ন দেখার জন্যও হতে পারে। এটা বিষণ্নতা এবং দু:খ জনিত চিন্তার কারণে ঘটে।

আর্নিকা মন্ট- যখন কোন ব্যক্তি শারীরিক এবং মানসিক ভাবে কঠোর পরিশ্রম করার ফলে ঘুমোতে পারে না তখন তাকে আর্নিকা দেওয়া হয়। যেকোনো ধরণের সমস্যার চিকিৎসার জন্য হোমওপ্যাথি ঔষধ রয়েছে যা প্রাকৃতিক উপাদান এবং এখানে সব ধরণের ঘুমের সমস্যার জন্য হোমওপ্যাথি ঔষধ রয়েছে। আপনি যদি কোন নির্দিষ্ট সমস্যা নিয়ে আলোচনা করতে চান, তাহলে কোন হোমিওপ্যাথের সাথে যোগাযোগ করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *